সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » Box 1 » মুসলমানদের বিরুদ্ধে ফেসবুকের মাধ্যমে ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্র


মুসলমানদের বিরুদ্ধে ফেসবুকের মাধ্যমে ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্র


সংবাদ সমগ্র - 29.09.2017

রাশিয়া থেকে পরিচালিত একটি ভুয়া ফেসবুক পেজ থেকে গত মার্কিন নির্বাচনের সময় সন্দেহজনক কর্মকা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। একটি মুসলিম সংগঠনের নামের ওই ভুয়া পেজটিতে বিভিন্ন বিষয়ে প্রচারণা চালানো হয়েছে।
ইউনাইটেড মুসলিম অব আমেরিকা নামের ওই পেজটিতে দুই লাখ ৬৮ হাজার ফলোয়ার রয়েছে। নির্বাচনী প্রচারণার সময় পেজটি থেকে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী হিলারি কিনটনের বিপক্ষে যায় এমন প্রচারণা চালানো হয়। হিলারি আলকায়েদা ও আইএসকে সৃষ্টি করেছেন এবং তহবিল ও অস্ত্র জোগান দিচ্ছেন বলে প্রচারণা চালানো হয়। এ ছাড়া সিনেটর জন ম্যাককেইন আইএসের তহবিল সংগ্রহে সহযোগিতা করছেন এবং ওসামা বিন লাদেন সিআইএর সাথে যড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন বলেও প্রচারণা চালানো হয়। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পত্রিকা ডেইলি বিস্টের এক রিপোর্টে এ কথা বলা হয়েছে।


পেজটি থেকে এমন সব বিষয় পোস্ট করা হতো, যা দেখলে মনে হতো মুসলিমদের পক্ষে বলা হচ্ছে। কিন্তু এর নেপথ্যে ছিল হিলারি ক্লিনটনকে মুসলিমপন্থী বা মুসলিমদের প্রতি সহানুভূতিশীল হিসেবে উপস্থাপন করা। এসব পোস্টের প্রায় সবই ছিল ভুয়া খবর। যেমন- জন ম্যাককেইনকে নিয়ে দেয়া একটি খবরে বলা হয়েছিল, সিরিয়ার উদ্বাস্তুরা আইএস তৈরি করেনি… আমি করেছি। এ ছাড়া অরল্যান্ডোর নাইট কাবে বন্দুকধারীর হামলায় ৪৯ জন নিহত হওয়ার পর গ্রুপটির নামে একটি ভুয়া ফেসবুক ইভেন্টও খোলা হয়েছিল, যার শিরোনাম ছিল- হিলারিকে সমর্থন করে, আমেরিকার মুসলিমদের রক্ষা করে।
অসমর্থিত সূত্রে ডেইলি বিস্ট জানতে পেরেছে, ওই ভুয়া গ্রুপটির একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট ও ৭১ হাজার ফলোয়ার যুক্ত একটি ইনস্টাগ্রাম পেজও ছিল। আর এ সবই চালানো হতো রাশিয়া থেকে। তবে ইউনাইটেড মুসলিম অব আমেরিকা নামে দেশটির মুসলিমদের যে সংগঠন রয়েছে, তাদের সাথে এই ফেসবুক পেজটির কোনো সম্পর্ক নেই। তাদের অন্য নামে ফেসবুক পেজ রয়েছে বলে ডেইলি বিস্টকে জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি। বিষয়টি নিয়ে তারা আইনজীবীদের সাথে আলোচনা করছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।
গত সেপ্টেম্বরে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তারা এমন এমন কিছু কর্মকা শনাক্ত করেছেন, যা যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন নীতি, বর্ণবাদ ও সমকামীদের অধিকার নিয়ে প্রচারণা চালিয়েছে। সম্ভবত এগুলো রাশিয়া থেকে করা হয়েছে। মার্কিন সিনেটের ইন্টেলিজেন্স কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান মার্ক ওয়ার্নার সাংবাদিকদের বলেন, মানুষকে প্রভাবিত করার বেশ কিছু কাজের প্রমাণ পেয়েছি আমরা।
ট্রাম্পের পক্ষপাতের অভিযোগ জাকারবার্গের অস্বীকার
ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ তার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্টের পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বুধবার এক টুইটে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বিরুদ্ধে ‘গোপন আঁতাতের’ অভিযোগ তোলেন ট্রাম্প। ফেসবুককে ‘ট্রাম্পবিরোধী’ বলে খেতাবও দেন তিনি।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট একই টুইটে সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস ও ওয়াশিংটন পোস্টের বিরুদ্ধেও একই ধরনের অভিযোগ আনেন। ট্রাম্পের টুইটের কয়েক ঘণ্টা পর ফেসবুকে দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় জাকারবার্গ তার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেন, সব ধারণার সন্নিবেশ ঘটানো যায় এমন একটি প্লাটফর্ম বানানোর চেষ্টা করছেন তিনি।
জাকারবার্গ বলেন, ‘সমস্যাযুক্ত বিজ্ঞাপন’ বাদ দিলে ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফেইসবুকের অবদান কম নয়। ফেসবুক জনগণকে কণ্ঠ দিয়েছে; প্রার্থীদের সরাসরি যোগাযোগের সুযোগ করে দিয়েছে, লাখ লাখ মানুষকে ভোট দিতে উদ্বুদ্ধ করেছে, সাহায্য করেছে।”
বড় দুই রাজনৈতিক শক্তি নির্বাচনের সময় ফেসবুকে যার যার অপছন্দের বিষয় দেখে হতাশ হয়েছে বলেও স্বীকার করেন তিনি। ট্রাম্পের জয়ে সুযোগ করে দেয়ায় উদারপন্থিরা তাকে অভিযুক্ত করেন বলেও মন্তব্য জাকারবার্গের।
নির্বাচনের সময় অনলাইন প্রচারে প্রার্থীরা কোটি কোটি ডলার ব্যয় করেছেন উল্লেখ করে ফেসবুকের এই প্রতিষ্ঠাতা বলেন, অন্য সময়ের তুলনায় তখন হাজার গুণ বেশি ‘সমস্যাযুক্ত বিজ্ঞাপনের’ অস্তিত্ব পেয়েছেন তারা।




Loading...
সর্বশেষ সংবাদ


Songbadshomogro.com
Contact Us.
Songbadshomogro.com
452, Senpara, Parbata, Kafrul
Mirpur, Dhaka-1216


close