শুক্রবার ২৩ জুন ২০১৭


ক্যাপ্টেন তানভীরের দাফন হচ্ছে শুনে মৃত্যুর কোলে দাদা


সংবাদ সমগ্র - 15.06.2017

ক্যাপ্টেন তানভীর ছালাম শান্ত পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালীশুরী ইউনিয়নের সিংরাকাঠী গ্রামের মোল্লা বাড়ির মো. ছালাম মোল্লার একমাত্র ছেলে। আদরের নাতি শান্তর এই অকালমৃত্যু কোনোভাবেই মন থেকে মেনে নিতে পারছিলেন না দাদা আজিজ মোল্লা (৮৩)। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে যখন তানভীরের দাফনের প্রস্তুতি চলছিল তা শুনেই বাউফল উপজেলার কালীশুরী ইউনিয়নের সিংরাকাঠী গ্রামের বাড়িতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন দাদা আজিজ মোল্লা।


তানভীরের ছোট চাচী ঝর্না বেগম জানান, তানভীরের মৃত্যু সংবাদ শোনার পড় থেকেই অস্থির হয়ে ওঠেন তিনি। তানভীরের মৃত্যুর খবর শুনে অনেকেই গ্রামের বাড়িতে আসছেন। তাদের সবার সাথে বারবার তানভীরের স্মৃতি বিজড়িত নানা কথা বলে চোখের পানি ফেলছিলেন তিনি।
বুধবার বিকেলে নিহত ক্যাপ্টেন তানভীরের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে দেখা হয় তার সাথে। সেই সময়ে তিনি ঘরের সামনে বারান্দায় একা আপন মনে বসে ছিলেন। সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তানভীরের নানা কথা বলে বারবার কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। আর বিছানার পাশে তানভীরের বিয়ের কার্ড খুঁজছিলেন।
তানভীরের চাচা মো. আবদুর রব রাকিব জানান, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে বাউফলের কালিশুরী ইউনিয়নের সিংহেরা কাঠি গ্রামে তানভীরের তৈরি মসজিদে তার দাদার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে পিতা আর পুত্রকে হারিয়ে পুরোপুরি নির্বাক ইঞ্জিনিয়ার মো. ছালাম মোল্লা।
গত ১৩ জুন মঙ্গলবার কয়েকদিনের প্রবল বৃষ্টিতে রাঙামাটিতে পাহাড় ধসে শতাধিক মানুষ নিহত হন। বন্ধ হয়ে যায় রাঙামাটির রাস্তাঘাট। আটকা পড়েন শতশত মানুষ। উদ্ধার করতে গিয়ে আবার পাহাড় থেকে মাটি ধসে পড়লে চাপা পড়েন সেনাসদস্যরা। আর এতে প্রাণ হারান মেজর মোহাম্মদ মাহফুজুল হক, ক্যাপ্টেন তানভীরসহ ৫ সেনাসদস্য। এরা হলেন- করপোরাল মোহাম্মদ আজিজুল হক, সৈনিক মো. শাহিন আলম ও সৈনিক মো. আজিজুর রহমান।
তানভীর ২০০৯ সালে বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমীতে যোগদান করেন। ৬৪তম বিএমএ দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের মাধ্যমে কমিশন লাভ করেন তিনি। পরে ক্যাপ্টেন পদমর্যাদায় পদোন্নতি পান। ২০১৬ সালে ২ সেপ্টম্বর জয়পুরহাট জেলার নাজিয়া সুলতানাকে বিয়ে করেন তিনি।




Loading...
সর্বশেষ সংবাদ


Songbadshomogro.com
Contact Us.
Songbadshomogro.com
452, Senpara, Parbata, Kafrul
Mirpur, Dhaka-1216


close